হেডফোন কি? – হেডফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয়।

বর্তমান সময়ে হেডফোন কি এবং হেডফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয়। সে বিষয়ে অনেকেই সঠিক তথ্য জানেনা। এক্ষেত্রে যাদের কাছে একটি মোবাইল রয়েছে, তারা একবার হলেও হেডফোন ব্যবহার করেছে।

Advertisement

কিন্তু অনেকের মনে অনেক ধরনের প্রশ্ন থাকে এই হেডফোনের উপর। তাই যারা হেডফোন এর বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য জানতে চান তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি প্রস্তুত করা হয়েছে।

হেডফোন কি? - হেডফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয়।
হেডফোন কি? – হেডফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয়।

এখান থেকে আপনারা হেডফোন কি বা হেডফোন কাকে বলে, হেডফোন কি ধরনের ডিভাইস, হেডফোন কত প্রকার ও কি কি সহ হেডফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয় সে বিষয়ে বিস্তারিত।

তাই চলুন আর সময় নষ্ট না করে, হেডফোন সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা জেনে নেয়া যাক।

হেডফোন কি? বা হেডফোন কাকে বলে ?

হেডফোন হচ্ছে একজোড়া ট্রান্সডুসার। যা মিডিয়া প্লেয়ার থেকে নির্গত হওয়া বৈদ্যুতিক তরঙ্গ রূপান্তর করে মানুষের কানে শ্রবনযোগ্য শব্দ তৈরি করে থাকে।

Advertisement

হেডফোন মূলত, মানুষ গান শোনার জন্য এবং মোবাইলে কথা বলার জন্য ব্যবহার করে থাকে।

হেডফোনে থাকা দুইটি ট্রান্সডুসার কে দুই কানে লাগাতে হয়।

এক্ষেত্রে বিশেষ কিছু হেডফোনে মাইক্রোফোন দেওয়া থাকে। যার ফলে হেডফোন লাগিয়ে কোন ব্যক্তিকে ফোন করলে, শব্দ শোনার সঙ্গে সঙ্গে কথা বলা যায়।

হেডফোনের অপর নাম

হেডফোন কে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন নামে ডাকা হয়। তো চলুন হেডফোনের অপর নাম সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।  যেমন-

  • ইয়ারফোন
  • স্টোরিওফোন
  • হেডসেট ইত্যাদি।

বিভিন্ন জায়গার মানুষ বিভিন্ন নামে এই হেডফোনের নাম ধরে চিহ্নিত করেন। মূলত এই সব কিছু মিলিয়ে হয় হেডফোন।

হেডফোন কয় প্রকার ও কি কি?

সাধারণত হেডফোন হচ্ছে দুই প্রকার। কিছু হেডফোন রয়েছে যেগুলো তারের মাধ্যমে ডিভাইসের সংযুক্ত করা যায়। আবার অনেক ধরনের হেডফোন রয়েছে। যেগুলো ব্লুটুথ এর মাধ্যমে তারবিহীন সংযোগ করা যায়।

হেডফোন কে গঠনের দিক দিয়ে দুই ভাগে বিভক্ত করা যায় যেমন-

  1. তারযুক্ত হেডফোন (Wired Headphone)
  2. ওয়্যারলেস হেডফোন (Wireless Headphone)

তারযুক্ত হেডফোন

এ সকল হেডফোন একটি তার সংযুক্ত থাকে। তার এর এক প্রান্ত হেডফোনের সাথে যুক্ত থাকে। অন্য প্রান্তে একটি কড থাকে। যার নির্দিষ্ট ডিভাইসের মধ্যে প্রবেশ করানোর পর কানেক্ট করা যায়।

ওয়্যারলেস হেডফোন

এই সকাল হেড ফোনে কোন প্রকার তার থাকে না। হেডফোন চালু করে ব্লুটুথ এর মাধ্যমে মোবাইল, ল্যাপটপ বা কম্পিউটারের সাথে সংযুক্ত করা যায়।

ব্লুটুথ হেডফোন কি ?

অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন ব্লুটুথ হেডফোন কি? যে সকল হেডফোনে ব্লুটুথ থাকে সে সকল হেডফোন কে ব্লুটুথ হেডফোন বলা হয়।

ব্লুটুথ হেডফোন গুলো তার ভিন ভাবে শুধুমাত্র ব্লুটুথের সাহায্যে নির্দিষ্ট ডিভাইসে সংযুক্ত করা যায়। এবং নির্দিষ্ট ডিভাইস থেকে হেডফোন কে পুরোপুরি ভাবে কন্ট্রোল করা যায়।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্লুটুথ হেডফোনের ব্যাটারি সংযুক্ত থাকে। সেই হেডফোন গুলো চার্জ দেয়ার মাধ্যমে ব্যবহার করা যায়।

হেডফোন কিভাবে ব্যবহার করতে হয়

আপনি যদি হেডফোন ব্যবহার করতে আগ্রায় থাকেন তাহলে নিচে দেওয়া তথ্যগুলো অনুসরণ করতে পারেন। তাহলে আপনারা সঠিক পদ্ধতিতে হেডফোন ব্যবহার করা জানতে পারবেন।

তারযুক্ত হেডফোন ব্যবহার

আপনি যদি তার যুক্ত হেডফোন ব্যবহার করতে চান? সেক্ষেত্রে তারের অপরপ্রান্তটি ডিভাইসের সঙ্গে সংযুক্ত করতে হবে। যা আপনার কম্পিউটার বা মোবাইলে থাকায় হেডফোন কোড এর মধ্যে হেডফোনের কোডটি সংযুক্ত করে দিবেন।

তারপর নির্দিষ্ট ডিভাইসের মধ্যে থাকা ভিডিও বা অডিও গানগুলো চালু করবেন। তারপর দেখতে পারবেন আপনার হেডফোনে শব্দ শোনা যাচ্ছে।

ব্লুটুথ হেডফোন ব্যবহার

ব্লুটুথ হেডফোন ব্যবহার করার জন্য প্রথমে আপনার হেডফোন কে ভালোভাবে চার্জ করতে হবে। হেডফোন চার্জ সম্পন্ন হয়ে গেলে হেডফোনটি চালু করবেন।

তারপর মোবাইলের ব্লুটুথ অপশনে গিয়ে হেডফোনের নামটি সঙ্গে Pair করে কানেকশন স্থাপন করবেন।

এক্ষেত্রে যদি ব্লুটুথ হেডফোনটি মোবাইলের সঙ্গে কানেক্ট হয়। তারপর মোবাইলের যেকোনো একটি গান বা সাউন্ড চালু করলেই হেডফোনের মাধ্যমে শুনতে পারবেন।

হেডফোন কোন ধরনের ডিভাইস

আমরা হেডফোন সম্পর্কে বিভিন্ন ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি। এখন আপনাদের সুবিধার্থে জানাবো হেডফোন মূলত কোন ধরনের ডিভাইস। তো আমরা এক কথায় বলে দিতে পারি হেডফোন হচ্ছে- আউটপুট ডিভাইস।

আমরা জানি কম্পিউটার থেকে কোন কিছু আউটপুট ইউজার কে পরিবাসন করা হলে সেটিকে আউটপুট বলা হয়। এখানে যেহেতু আমরা শুনতে পাই তাই হেড ফোনে একটি আউটপুট ডিভাইস।

আউটপুট এবং ইনপুট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে পারেন। আমরা এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ডিভাইস সম্পর্কে আপডেট তথ্য প্রদান করে থাকি।

শেষ কথাঃ

আমরা আশা করি উপরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী হেডফোন কি বা কাকে বলে, হেডফোন ব্যবহার করার নিয়ম সে সাথে হেডফোন কত প্রকার ও কি কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন।

এখন যদি হেডফোন সম্পর্কে আপনার আরো কোন কিছু জানার থাকে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। আমরা আপনার কমেন্টের অপেক্ষায় থাকবো।

আর আপনার যদি আর্টিকেলটি পড়ে হেডফোন সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ধারণা এসে যায়। তাহলে এ বিষয়ে আপনার বন্ধুদের জানাতে একটি সোশ্যাল মিডিয়া শেয়ার করে দিবেন।

আমাদের সাথে শেষ পর্যন্ত সময় দেওয়ার জন্য আপনাদের জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ এবং শুভকামনা।

Advertisement

Leave a Comment