মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

ছাত্র জীবনের কারো কাছে হয়তো তেমন বেশি টাকা থাকে না। আবার অনেকে নিজের বাসা থেকে টাকা চাইতে অস্বস্তি বোধ করে থাকে।

Advertisement

তবে আপনি যদি চান? প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করবেন। সে ক্ষেত্রে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনাকে মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে।

কারণ আপনি যদি মাসে 10 হাজার টাকা আয় করতে পারেন। তবে আপনার যেমন নিজের বাসা থেকে টাকা নেওয়ার জন্য হাত পাততে হবে না। তেমনি কিছু টাকার সঞ্জয় করে রাখতে পারবেন নিজের ভবিষ্যতের জন্য।

মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়
মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

তো আজকের এই আর্টিকেলে মূল আলোচ্য বিষয় হলো মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়। আপনি যদি আমাদের দেওয়া পরামর্শ অনুযায়ী কাজ করেন।

তাহলে আমাদের দেখানো সেক্টরগুলোতে পার্টটাইম হিসেবে কাজ করতে পারবেন। আর পার্ট টাইম জব করেই আপনার মূলত মাসের ১০ হাজার টাকা রোজগার করতে পারবেন বা আরও বেশি।

Advertisement

তো এখানে যে বিষয়গুলো নিয়ে বলবো তার যেকোনো একটি বা একাধিক কাজ আপনি একসাথে করার সুযোগ পাবেন। কিন্তু প্রথম অবস্থায় আপনাকে শুরু করতে হবে যেকোনো একটি সেক্টর নিয়ে। তারপর যখন হাতে টাকা আসতে শুরু করবে তখন আপনি সিদ্ধান্ত নিতে পারেন একাধিক কাজ করার।

আরো পড়ুনঃ

তো আসুন, বিস্তারিত জেনে নেই মাসে ১০ হাজার টাকায় করার উপায় গুলো সম্পর্কে।

প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে, প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা আয় করা তেমন কোন কঠিন ব্যাপার নয়। তারপরও আমি আপনাদের সুবিধার্থে এখানে এমন কিছু জনপ্রিয় এবং বিশ্বাসযোগ্যদের সাথে অনলাইনে টাকা ইনকাম করা যায়। সেই কিছু সেক্টর নিয়ে আলোচনা করব।

তো চলুন আর সময় নষ্ট না করে প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার সেরা উপায় গুলো জেনে নেই।

প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায় হিসেবে আপনারা যে, সেক্টরগুলোতে কাজ করতে পারবেন সেগুলো হলো-

  • ব্লগিং করে আয়।
  • ইউটিউব থেকে আয়।
  • ডাটা এন্ট্রি করে আয়।
  • বিজ্ঞাপন দেখে আয়।
  • ছবি বিক্রি করে আয়।
  • ফেসবুক থেকে আয়।
  • এন্ড্রয়েড এপস থেকে আয়।
  • আর্টিকেল লিখে আয়।

ব্লগিং করে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে, ব্লকিং করে টাকা ইনকাম করা অনেক জনপ্রিয়তা লাভ করছে। আপনারা প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার মাধ্যম হিসেবে সর্বপ্রথম ব্লগিংকে বেছে নিতে পারেন।

বিশেষ করে, আপনি যদি ব্লগিং শুরু করেন। সেক্ষেত্রে প্রথম অবস্থায় ইনকামের পরিমাণ কম থাকলেও, এখানে নিজের দক্ষতা বাড়িয়ে নিতে পারলে, ইনকামের পরিমাণটাও বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

অর্থাৎ আপনি যদি লেখাগুলেখি করতে এক্সপার্ট এবং এসইও এক্সপার্ট হয়ে থাকেন। সেক্ষেত্রে আপনি দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্লগিং সেক্টর থেকে মাসে হাজার হাজার ডলার উপার্জন করতে পারবেন।

ব্লগিং সেক্টরে ভালো সফলতা অর্জন করতে চাইলে আপনাকে আগে বুঝতে হবে মানুষের আকর্ষণ কোন বিষয়গুলোতে। আর আপনাকে মানুষের চাহিদা সম্পন্ন অনুযায়ী আপনার ব্লগে প্রাধান্য দিতে হবে এবং সে অনুযায়ী পোস্ট পাবলিশ করতে হবে।

আরো একটি বিষয় বলতে চাই আপনি যদি ব্লগিং সেক্টরে ইনকাম করতে চান? তাহলে অবশ্যই আপনাকে একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট বানাতে হবে।

সেখানে নিয়মিত ভাবে কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে। তারপর পর্যাপ্ত পরিমাণে কন্টেন্ট হয়ে গেলে, ভিজিটর আসা শুরু করবে। সে সময় আপনারা গুগল এডসেন্স মনিটাইজেশন করে ইনকাম করা শুরু করতে পারবেন।

আরো দেখুনঃ

যা আমরা আগেই বলেছি প্রথম অবস্থায় ইনকামের পরিমাণ কম থাকবে, এটি ধীরে ধীরে ইনকামের পরিমাণ বাড়তে থাকবে। আর প্রথম অবস্থায় ব্লগিংয়ে আপনারা সর্বনিম্ন দশ হাজার টাকা তো ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটিউব থেকে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

ইউটিউব এখন এতটা জনপ্রিয় হয়ে গেছে, যেখানে আমাদের পছন্দমত যে কোন ভিডিও দেখতে চাইলে, সহজেই খুঁজে পাওয়া যায়। কিন্তু আপনি কি জানেন youtube থেকে ইনকাম করা যায়।

আর ইনকাম করা গেলেও কিভাবে ইনকাম করতে হয় সে বিষয়ে জানতে চান? যদি আপনার উত্তরে হ্যাঁ হয় তাহলে আমি আপনাকে বলব।

Youtube চ্যানেল থেকে ইনকাম করতে চাইলে, সর্বপ্রথম আপনার ইমেইল এড্রেস দিয়ে একটি youtube চ্যানেল ক্রিয়েট করতে হবে।

তারপর সেখানে, মানুষের চাহিদা সম্পন্ন ভিডিও বানাতে হবে। এবং নিয়মিত সেই ভিডিওগুলো ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করে, গুগল এডসেন্স মনিটাইজেশন করে ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স মনিটাইজেশন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই চলতি এক বছরের মধ্যে এক হাজার সাবস্ক্রাইবার এবং ৪০০০ ঘন্টা ওয়াচ টাইম পূরণ করে, মনিটাইজেশন অন করতে হবে।

তো আজকে আমরা শুধু ধারণা দিলাম youtube থেকে কিভাবে ইনকাম করা যায়। আমরা পরবর্তী একটি আর্টিকেলে ইউটিউব থেকে ইনকাম করার এ টু জেড গাইড জানিয়ে দেব। সেজন্য আমাদের ওয়েব সাইটে নিয়মিত ভিজিট করতে থাকুন।

ডাটা এন্ট্রি করে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

অনলাইন মার্কেটপ্লেসে অসংখ্য ইনকাম করার মাধ্যম রয়েছে। তার মধ্যে আরও একটি জনপ্রিয় মাধ্যম হল ডাটা এন্ট্রি। আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হিসেবে, নিজের লেখাপড়ার খরচ চালাতে চান?

আপনি অনলাইন ইনকাম হিসেবে ডাটা এন্ট্রি বেছে নিতে পারেন। তো ডাটা এন্ট্রি কাজ করতে চাইলে, আপনাকে অবশ্যই কম্পিউটার টাইপিং এ দক্ষতা সম্পন্ন হতে হবে।

আপনারা যত দক্ষতার সাথে বাংলা এবং ইংরেজি টাইপিং করতে পারবেন। তত বেশি পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অনলাইন মার্কেটপ্লেস গুলোতে ডাটা এন্ট্রি করার অসংখ্য কাজ রয়েছে। আপনারা একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে অনলাইন প্লাটফর্ম গুলোতে নিজের প্রোফাইল তৈরি করলে, বিভিন্ন ক্লায়েন্ট দেওয়া ডাটা এন্টি কাজ করে নিজের ঘরে বসে রোজগার করতে পারবেন।

আপনি যদি সফলভাবে ডাটা এন্ট্রি কাজ করতে পারেন। তাহলে শুধুমাত্র মাসের ১০ হাজার নয়। আরো বেশি পরিমাণে টাকা রোজগার করার সুযোগ পাবেন।

বিজ্ঞাপন দেখে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

অনলাইন এর মাধ্যমে এমন অসংখ্য প্ল্যাটফর্ম রয়েছে, যেগুলোতে আমরা প্রবেশ করলে, বিভিন্ন ধরনের গুগল বিজ্ঞাপন দেখতে পারি।

কিন্তু আপনি শুনলে অবাক হবেন যে, এই সময়ে এমন কিছু ওয়েবসাইট আছে যেগুলোতে আপনারা বিজ্ঞাপন দেখার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

তো বিজ্ঞাপন দেখে ইনকাম করার জন্য, যে ওয়েবসাইট গুলোতে বিজ্ঞাপন দেখার জন্য টাকা প্রদান করে, সে সকল ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট রেজিস্টার করে নিবেন এবং তাদের দেওয়া নিয়ম অনুযায়ী বিভিন্ন সাইট এবং ভিডিওর বিজ্ঞাপন দেখে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন।

ছবি বিক্রি করে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

আপনি যদি একজন স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য আরও একটি দুর্দান্ত অনলাইন ইনকামের মাধ্যম হল ছবি বিক্রি করা। বিষয়টি শুনে আপনার বিশ্বাস নাও হতে পারে। কিন্তু এটাই সত্যি।

আপনি চাইলেই আপনার স্মার্টফোন দ্বারা বা ক্যামেরা দ্বারা বিভিন্ন দৃশ্যের ছবি তোলে সেগুলোকে আকর্ষণীয়ভাবে এডিট করার পর। অনলাইন ইমেজ স্টক ওয়েবসাইট গুলোতে, বেশ ভালো দামে বিক্রি করতে পারবেন।

এছাড়া, অনলাইনে এমন অসংখ্য প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। যেগুলোতে, আকর্ষণীয় ছবি গুলো আপলোড করার পরে, সে ছবিগুলো যখন সাধারণ ভিজিটর ডাউনলোড করবে। সে ডাউনলোডের ভিত্তিতেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুক থেকে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

বর্তমানে সব থেকে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম হল ফেসবুক। আমরা জানি সকলেই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন।

কিন্তু এখনো অনেক মানুষ রয়েছে, যারা ফেসবুক থেকে ইনকাম করা যায় সে বিষয়ে জানেনা। তাই তাদের সুবিধার্থে আমি এখানে বলতে চাই আপনি যদি মাসে 10000 টাকা বা আরো বেশি টাকা ইনকাম করতে চান?

তাহলে আপনার ইনকামের পথ ফেসবুক থেকে বেছে নিতে পারেন। কারণ ফেসবুকে বিভিন্ন পদ্ধতিতে ইনকাম করা যায়।

আমি আপনাকে সহজে একটি পদ্ধতি বলতে চাই সেটি হল ফেসবুক পেজ ক্রিয়েট করে, বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আপলোড করে, ফেসবুক মনিটাইজেশন নিয়ে ইনকাম করতে পারবেন বিজ্ঞাপন দেখিয়ে।

আর্টিকেল লিখে আয় – মাসে ১০ হাজার টাকা আয় করার উপায়

আপনি যদি লেখালেখি করতে পছন্দ করেন। তাহলে আপনার জন্য অসংখ্য সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে। যে আপনি নিজের ঘরে বসে বাংলাদেশী বাংলা ভাষায় আর্টিকেল লিখে ইনকাম করতে পারবেন।

বিশেষ করে আমাদের নজরে, এমন একটি জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। যে ওয়েবসাইটে কাজ করে আপনারা বাংলা এবং ইংরেজি লিখে ইনকাম করতে পারবেন আর সেই সাইটটি হল- blog.jit.com.bd.

আপনারা এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে, ফ্রিতে একটি অ্যাকাউন্ট ক্রিয়েট করে নিতে পারবেন। তারপর ওয়েবসাইট ক্যাটাগরি অনুযায়ী আর্টিকেল লিখে প্রতিদিন ইনকাম করার টাকা মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্টের মাধ্যমে উত্তোলন করতে পারবেন।

শেষ কথাঃ

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা এতটা সহজ নয় আবার এতটা কঠিনও নয়। অর্থাৎ আপনি যদি পরিশ্রমী না হন। তাহলে অনলাইনের মাধ্যমে পার্ট টাইম জব করে টিকে থাকতে পারবেন না।

তাই আপনার ধৈর্য শক্তি বাড়িয়ে, অনলাইন ইনকামের পথে নামতে হবে। আর আমি আপনাদের সুবিধার্থে যে অনলাইন ইনকামের বিষয়ে বললাম সেখান থেকে যেকোনো একটি সেক্টর নিয়ে কাজ করলে আপনি ভবিষ্যৎ জীবন উজ্জ্বল করতে পারবেন।

যেমন আমরা প্রথমে বলেছি ব্লগিং করে, ইনকাম আপনি যদি এই ব্লগিং সেক্টরে যুক্ত হতে পারেন। তাহলে ভবিষ্যৎ জীবন নিয়ে আপনাকে চিন্তা করতে হবে না।

আপনি একবার প্রফেশনাল ব্লগার হতে পারলে, সেখান থেকে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

তো বন্ধুরা আজকের আর্টিকেলটি আপনার কাছে কেমন লাগলো, অবশ্যই কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। আর এই ধরনের অনলাইন ইনকাম রিলেটেড আরও নতুন নতুন পোস্ট পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করুন

ধন্যবাদ।

Advertisement

Leave a Comment